স্রেবেনিচা, জুলাই ‘৯৫

আলোকচিত্র-কৃতজ্ঞতা নাদিয়া ইসলাম 

আমি একদিন পতোচারীর সেই কবরস্থানটা দেখতে যাবো

দেখবো গণহত্যার শিকার এক কিশোরের সমাধিফলকের পাশে বসে একমনে সূরা ইয়াসিন পড়ে চলেছেন, পড়েই চলেছেন এক বৃদ্ধা

তাঁর চোখের দিকে তাকানোর সাহস হবে না, আমি একটা ভীরু খরগোশের মতো পালিয়ে চলে আসবো এক পাহাড়চূড়ায়

যেখানে বেয়োনেটে খোঁচানো লাশ কুকুরদের খাওয়ানো হত

মনে রেখো, স্রেবেনিচা

সেদিন বিকেলে রক্ত সুগন্ধী গোলাপে মিশে যাবে, পানি উপচে পড়বে ঘাসে, আর আকাশ কাঁচের মতো ভেঙে পড়বে দুনিয়াজাহানে

গালিলির গ্রামে গ্রামে শোক করবে কুমারী মায়েরা…

2 Replies to “স্রেবেনিচা, জুলাই ‘৯৫”

  1. কবিতাটি বেশ সংক্রামক। চমৎকার। এটি ইতিহাসের ইঙ্গিতেই নিঃশেষিত হয় না। বরং পাঠের সময় নিজে এক বাস্তবতা সৃষ্টি করতে থাকে যা সর্বকালীন ও মানবিক।

    ভাই, প্রথম লাইনে শব্দটা ‘পথচারী’ হবে কি?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *