//মহিমান্বিতদের উপনিবেশঃ যে-পবিত্রতার প্রলেপের নিচে নৃশংসতা থাকে

মহিমান্বিতদের উপনিবেশঃ যে-পবিত্রতার প্রলেপের নিচে নৃশংসতা থাকে

আলোকচিত্র অনলাইন থেকে
পল স্খেফার অল্পবয়সে যোগ দিয়েছিলো হিটলার ইয়ুথে। বড়ো হয়ে সে ভেরমাখট বলে পরিচিত নাজি জার্মানির সংযুক্ত সশস্ত্র বাহিনীতে একজন মেডিক হিসেবে যোগ দেয় এবং কর্পোরাল পদে উন্নীত হয়। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে নাজিরা হারলে সে ধর্মপ্রচারক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে, এবং ষাটের দশকে আবির্ভূত হয় দক্ষিণ আমেরিকার দেশ চিলেতে।
 
ততোদিনে সে পুরোদস্তুর খ্রিস্টের সৈনিকে পরিণত হয়েছে। চিলেতে জার্মান শরণার্থীদের জন্য সে কলোনিয়া দিগনিদাদ – মহিমান্বিতদের উপনিবেশ – নামে একটা ‘আশ্রম’ খোলে। আপাতদৃষ্টিতে এখানে কী করে ভালো খ্রিস্টান হওয়া যায় কঠোরভাবে সেই শিক্ষা দেয়া হত।
 
১৯৭৩এ চিলের গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত এবং বামঘেঁষা বলে সুবিদিত প্রেসিডেন্ট সালভাদর আয়েন্দে একটি সিআইএ-পরিকল্পিত ক্যুদেতায় নিহত হন, এবং জেনারেল অগুস্ত পিনোশের ক্ষমতাদখলের মাধ্যমে নেমে আসে জলপাই রঙের অন্ধকার। এটা সবাই জানে। যা অনেকেই জানে না, তা হচ্ছে এই সাবেক নাজি পল স্খেফার স্বৈরাচারী সামরিক শাসক পিনোশের অত্যন্ত ভালো বন্ধু ছিলো, এবং অজস্র মানুষকে এই বন্ধুত্বের বলি হতে হয়েছে।
 
কলোনিয়া দিগনিদাদ কোনো সাধারণ আশ্রম ছিলো না।
 
এর মাটির নিচে একটা ভূগর্ভস্থ সুড়ঙ্গ ছিলো। সেটা ছিলো চিলের গোপন পুলিশের অত্যাচার শিবির। সাধারণভাবে যে-কোনো স্বৈরাচারবিরোধী ও বিশেষভাবে কমিউনিস্টদের ওপর জেরা করার নামে ঠাণ্ডা মাথায় অমানুষিক অত্যাচার করা হতো সেখানে।
 
এটা তো নিচের কথা, ওপর কী ছিলো? ওপরে ছিলো ‘আশ্রম’। যেখানে পল স্খেফার কাল্ট মেম্বারদেরকে ‘নিয়ন্ত্রণ’ করতো!
 
সেখানে সে নারীদেরকে শেখাতো তাঁরা হচ্ছে পাপী, তাঁদের শরীর নোংরা, কারণ সেই শরীর দেখলে পুরুষরা প্রলোভিত হয়। তাই নারীরা আকর্ষণীয় পোষাক পরতে পারবে না, ব্রেসিয়ার পরতে পারবে না জামার নিচে। তাঁরা বিয়ে করার স্বপ্নও দেখতে পারবে না, কেননা যৌনসুখ পাপ, এটা পেতে গিয়ে মানুষ পথভ্রস্ট হয়ে যায়। তবে মাঝেমাঝে স্খেফারের নির্ধারণ করে দেয়া পুরুষ আর নারীরা মিলিত হবে, জন্ম দেবে সন্তানের, কিন্তু তাঁরা পিতৃত্বমাতৃত্ব দাবি করতে পারবে না। শিশুরা হবে ঈশ্বরের। আর ইশ্বরের স্বঘোষিত পার্থিব প্রতিনিধি পল স্খেফারের, সে এই শিশুদেরকে পিতৃস্নেহে প্রতিপালন করবে। যে-নারীরা এর ব্যত্যয় ঘটাতো স্খেফার বলতো সে-সব নারীর শরীরে দানব ঢুকেছে, সে পুরুষদের আহবান করতো দল বেঁধে কিলঘুষি মেরে নারীটিকে দানবমুক্ত করতে, অধিকাংশ পুরুষ সানন্দেই সারা দিতো।
 
এই কলোনিয়া দিগনিদাদের সশস্ত্র পাহারাদার আর প্রশিক্ষিত কুকুরদেরকে ফাঁকি দিয়ে ৪০ বছরে মাত্র ৫ জন পালাতে পেরেছিলো।
 
১৯৯০এ অবশেষে জেনারেল অগুস্ত পিনোশের পতন ঘটে। ১৯৯৭এ স্খেফার পালিয়ে যায়, আত্মগোপন করে আর্হেন্তিয়ায়, যেখান থেকে ২০০৫এ তাকে গ্রেপ্তার করে চিলেতে পাঠিয়ে দেয়া হয়। ৩৩ বছরের কারাদণ্ড হয় স্খেফারের, ২০১০এ সান্তিয়াগো দা চিলের জেলখানায় সে মৃত্যুবরণ করে।
 
স্খেফার অগণিত জার্মান ও চিলেইয়ান শিশুকে যৌন নিপীড়ণ করেছিলো, তবে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ এসেছিলো ২৫ জনের কাছ থেকে। এদের মধ্যে কলোনিয়া দিগনিদাদের সেই শিশুরাই প্রধান। যাদেরকে সে আপাতদৃষ্টিতে পিতৃস্নেহে প্রতিপালন করতো, বাস্তবে এরা শিকার হয়েছিলো তার বীভৎস নির্যাতনের।
 
কলোনিয়া দিগনিদাদ থেকে ৪০ বছরে যে ৫ জন পালাতে পেরেছিলো, তাদের দুজন ছিল জর্মন দানিয়েল আর লেনা। দানিয়েল ছিল আলোকচিত্রী আর লেনা ছিল বিমানবালা। আয়েন্দের কর্মসূচির বিদেশী এক সমর্থক ছিল দানিয়েল, তাঁকে বাঁচাতে গিয়ে, লেনা স্বেচ্ছায় ঢুকে পড়েছিলো এই অত্যাচার শিবিরে।
 
এই গল্প নিয়ে ২০১৫য় চলচ্চিত্রকার ফ্লোরিয়ান গালেনবার্গার কলোনিয়া নামের একটি সিনেমা বানিয়েছেন। ইংরেজিতে, দি কলোনি। লেনা চরিত্রে অভিনয় করেছেন ব্রিটিশ অভিনেত্রী এম্মা ওয়াটসন, তাই এই লেখাটি ভালোবাসা আর শ্রদ্ধায় তাঁকেই উৎসর্গ করা।
 
কলোনিয়া দিগনিদাদ আসলে ফ্যাশিস্ত ব্যবস্থার প্রতীক মাত্র। এই ব্যবস্থার ওপরে থাকে এক পবিত্রতার প্রলেপ। তার নিচে নৃশংসতা।
 
মাটির ওপরে ‘স্বাভাবিকভাবে’ নিয়ন্ত্রণ করা হয় নাগরিকদেরকে। তবে কেউ কেউ হঠাৎ গুম হয়ে যায়। তাঁরা ভূগর্ভে যায়, সেখানে ‘অস্বাভাবিক’ জগৎ, অত্যাচারের।
 
এই ফ্যাশিজম কি শুধু নাজি জার্মানিতেই ছিলো? বা পিনোশের চিলেতেই? আজকের দুনিয়ায় কি কোথাও ফ্যাশিস্তরা ক্ষমতায় নেই?
 
নাকি ভিন্ন নামে আর ভিন্ন লেবাসে আছে? দুনিয়ার বহু জায়গায়? হয়তো এই উপমহাদেশেই?
নিজেকে প্রশ্ন করতে করতে দেখতে পারেন কলোনিয়া…

তথ্যসূত্র

ডেভিসন, ফিল (২০১০) ‘পল স্খেফারঃ নাজি কর্নেল হু এস্টাবলিশড অ্যান এন্টি-সেমেটিক কলোনি ইন চিলে আফটার দি ওয়ার’, ইন্ডিপেন্ডেন্ট, ২৩ মে ২০১০, অনলাইনে লভ্যঃ http://www.independent.co.uk/news/obituaries/paul-sch-fer-nazi-colonel-who-established-an-anti-semitic-colony-in-chile-after-the-war-1981014.html অ্যাকসেস করা হয়েছে ৫ মার্চ ২০১৮য়।
গালেনবার্গার, ফ্লোরিয়ান (২০১৫) কলোনিয়া, সিনেমা।
Please follow and like us: